Header Ads

বাংলাদেশে ট্রেনিং সেন্টার স্থাপনে ফেসবুকের আশ্বাস


বাংলাদেশে ট্রেনিং সেন্টার স্থাপনে আশ্বাস দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠকে বাংলা ভাষায় ফেসবুক ও দেশে তথ্যপ্রযুক্তির উপর রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট এবং ট্রেনিং সেন্টার স্থাপনে ফেসবুকের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রীসহ দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের প্রতিনিধিরা। এর পরিপ্রেক্ষিতেই এ বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ।

শনিবার যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালিতে বৈঠকে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিস (বেসিস) সভাপতি শামীম আহসান, মহাসচিব রাসেল টি আহমেদ, বিসিএস সভাপতি এএইচএম মাহফুজুল আরিফ বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন।

ফেসবুক বার্তায় বেসিস সভাপতি শামীম আহসান জানান, ফেসবুক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ফলপ্রসূ বৈঠক হয়েছে। বাংলাদেশের রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট এবং ট্রেনিং সেন্টার স্থাপনে ফেসবুকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আহ্বান জানানো হয়েছে। ফেসবুকের পলিসি প্রোগামের হেড এসব শুনেন এবং আগ্রহ দেখিয়েছেন।

শামীম আহসান জানান, বাংলাদেশে ফেসবুক কার্যক্রম শুরু করলে সরকার অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে সুবিধা দেবে। একই সঙ্গে ফেসবুকের কর্মকর্তাদের বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণও জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালিতে ইউএস-বাংলাদেশ টেক ইনভেস্টমেন্ট সামিটে এই তিনজনসহ বিশিষ্ট আইটি ব্যবসায়ী ড্যাফোডিল গ্রুপের চেয়ারম্যান সবুর খান, বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি এএইচএম মাহফুজুল আরিফ, বেসিসের ১৫টি কোম্পানিসহ বাংলাদেশের অর্ধশত শীর্ষ আইসিটি ব্যবসায়ী ও কোম্পানির প্রতিনিধিরা অংশ নিচ্ছেন।
আমেরিকান বিনিয়োগকারীদের উৎসাহিত করতে বাংলাদেশে অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) উদ্যোগে যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় ১৭ মে থেকে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ইউএস-বাংলাদেশ টেক ইনভেস্টমেন্ট সামিট। সম্মেলনে যোগ দিতেই তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক, বেসিস সভাপতি শামীম আহসান, অগ্রণী ব্যাংক চেয়ারম্যান ড. খন্দকার বজলুল হক, বেসিস মহাসচিব রাসেল টি আহমেদ যুক্তরাষ্ট্রের সিলিকন ভ্যালিতে অবস্থান করছেন।

কোন মন্তব্য নেই

konradlew থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.