Header Ads

জীবন বাঁচায় মোবাইল, টুইটার, ফেসবুক!

মোবাইল, টুইটার, ফেসবুক জীবন বাঁচায়-কথাটা আন্তর্জাতিক রেডক্রসের৷ গত বছর ডিসেম্বরে ফিলিপাইনসে যে টাইফুন আঘাত হানে তাতে নিহত হয়েছিল প্রায় ১,৮০০ জন মানুষ৷ তবে সংখ্যাটা আরও বাড়তে পারত, যদি না ‘এসব’ থাকত৷
এসব বলতে স্মার্টফোন আর বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যম৷ ‘ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ রেডক্রস অ্যান্ড রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটিস’ বা আইএফআরসি’-র মহাসচিব বেকেলে গেলেটা এক বিবৃতিতে বলেছেন, দুর্গত এলাকার প্রায় ৯৯ ভাগ মানুষের মোবাইল ফোন ব্যবহারের সুযোগ থাকায় হাজার হাজার প্রাণ বাঁচানো সম্ভব হয়েছে৷ খুদে বার্তা বা অন্য উপায়ে তাঁদের কাছে দুর্যোগের আগাম তথ্য ও কীভাবে নিরাপদে থাকা যাবে সে সংক্রান্ত তথ্য পাঠানো গিয়েছিল৷
আইএফআরসি সম্প্রতি তাদের প্রকাশিত ‘ওয়ার্ল্ড ডিজাস্টার রিপোর্ট’ শীর্ষক এক প্রতিবেদনে বলেছে, গত বছর দুর্যোগের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সংখ্যা আগের চেয়ে কমেছে৷ তবে দরিদ্রতম দেশগুলোতে ক্ষতিগ্রস্তের সংখ্যা বেড়েছে৷ এর একটা অন্যতম কারণ, প্রযুক্তি ব্যবহারের সুযোগ না থাকা, বলছেন প্রতিবেদনটির সম্পাদক প্যাট্রিক ভিঙ্ক৷
অবশ্য প্রযুক্তি নিয়ে এত ভাল কথা লেখার পরও প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুর্যোগের সময় ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের জন্য এখনও প্রযুক্তির চেয়ে উদ্ধারকারীদের সহায়তাই বেশি জরুরি৷
আইএফআরসির প্রতিবেদন অনুসারে, গত বছর বিশ্বজুড়ে ৫৫২টি প্রাকৃতিক ও শিল্পখাত সংশ্লিষ্ট দুর্ঘটনায় ১৫,৭০৬ জন নিহত হয়েছেন৷ আর ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় ১৪ কোটি মানুষ৷ আর্থিক ক্ষতির মূল্য প্রায় ১৫৭.৬ বিলিয়ন ডলার৷ এর মধ্যে হ্যারিকেন স্যান্ডির কারণে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেরই ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১০৩.৬ বিলিয়ন ডলার৷

কোন মন্তব্য নেই

konradlew থেকে নেওয়া থিমের ছবিগুলি. Blogger দ্বারা পরিচালিত.