শনিবার, ১৬ নভেম্বর, ২০১৩

ফেসবুকের ৬ রকমের পোস্ট থেকে এক শ হাত দূরে থাকুন

ফেসবুকের টাইমলাইনে প্রায়ই কিছু এলোমেলো পোস্ট আসে যা আপনার বন্ধুদের পোস্ট হিসেবেই দেখাবে হবে। অথচ এইগুলো সাইবার অপরাধীদের ভয়ঙ্কর সব ম্যালওয়্যার। এসব পোস্ট দেখতে ক্লিক করেছেন তো মরেছেন। আপনার গোপন সব তথ্য চুরি হয়ে যাবে।

স্লোভাকিয়ান অ্যান্টিভাইরাস অ্যান্ড সিকিউরিটি সফটওয়্যার ডেভেলপার (ইএসইটি) ফেসবুকের ছয় রকম সামাজিক পোস্টের তালিকা প্রকাশ করেছে যা মারাত্মক ম্যালওয়্যার হিসেবে চিহ্নিত। কাজেই এগুলো জেনে নিন এবং ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।

১. মুখরোচক সব গল্প: ফেসবুকে মাঝে-মধ্যে সেলিব্রেটিদের গরম সব খবর পোস্ট আকারে টাইমলাইনে দেখা যায়। এমন খবর ফেসবুকের মাধ্যমে না দেখে গুগলে গিয়ে দেখে নেওয়াই ভাল। ফেসবুকে দেখতে গেলে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এগুলো আপনার তথ্য চুরি করে নেবে।

২. ব্রেকিং নিউজ: ফেসবুকের 'ব্রেকিং নিউজ'র লিঙ্ক থেকে এক শ হাত দূরে থাকুন। এই লিঙ্কগুলো অনেক সময় ফেসবুক ফিডে আসে। অসাবধানতাবশত ক্লিক করলে ম্যালওয়্যার ছাড়া আর কিছুই ডাউনলোড হবে না।

৩. যে পোস্টগুলো 'লাইক' দিতে বলে: সামাজিক কোনো বিষয়ে পোস্ট দিয়ে তা লাইক করতে বলা হয় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের। এগুলোকে কখনোই লাইক করবেন না। বরং আপনার ফেসবুক অ্যাকটিভিটিতে নিউ গ্রাফ সার্চে গিয়ে নিশ্চিত হয়ে নিন যে, ওই পোস্টের সাথে সংশ্লিষ্ট কোনো কম্পানি বা সাইটে আপনি লাইক দিয়েছিলেন কি না।

৪. ডায়েট সংক্রান্ত পোস্ট: 'ওজন কমানোর অব্যর্থ পদ্ধতি' বা 'স্লিম হওয়ার উপায়'- এ ধরনের পোস্ট প্রায়ই চোখে পড়বে আপনার। ফ্রিতে এমন একটি ডায়েট কোর্স পেতে কে না চায়। কিন্তু ভুলেও তা নিতে যাবেন না। নয়তো আপনার ফেসবুক প্রোফাইলই জরাগ্রস্ত হয়ে পড়বে।

৫. অচেনা খবরের উৎস: ইন্টারনেটে অচেনা আর অজানা কিছু মানেই বিপদ। ফেসবুকেও তাই। অপরিচিত বা কখনো নাম শোনেননি এমন খবরের উৎস থেকে যে পোস্টগুলো আসে তাতে ক্লিক করবেন না। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই 'রিয়েল নিউজ' হিসেবে এই পোস্টগুলোকে আকর্ষণীয় করে তোলা হয়।

৬. গিফট কার্ড: ইন্টারনেটে ক্ষতিকর সফটওয়্যারগুলো সবচেয়ে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে গিফট কার্ডের মাধ্যমে। 'ফ্রি গিফট কার্ড' লেখা দেখলেই সবাই তাতে ঢুঁ মারতে চায়। কোনো ফ্রি গিফট তো মেলেই না, বরং আপনার অগোচরে ব্যক্তিগত তথ্য চলে যায় সাইবার অপরাধীদের কাছে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন